Home / Lifestyle / জীবনে সুখী হতে চান? মে’নে চলুন বিল গেটসের এই ৩টি উপদেশ

জীবনে সুখী হতে চান? মে’নে চলুন বিল গেটসের এই ৩টি উপদেশ

জীবনে সুখী হতে চান? মে’নে চলুন বিল গেটসের এই ৩টি উপদেশ – উইলিয়াম হেনরী গেটস বা বিল গেটস (জন্ম অক্টোবর ২৮, ১৯৫৫) মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা, চেয়ারম্যান, সাবেক প্রধান সফটওয়্যার নির্মাতা এবং সাবেক সিইও। একাধারে ১৩ বছর যাবৎ তিনি পৃথিবীর সর্বোচ্চ

ধনী ব্যক্তি ছিলেন। তিনি ১৯৯৪ সালের ১লা জানুয়ারী তারিখে মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ- কে বিয়ে করেন। ১৯৭৫ সালে বিল গেটস এবং পল এলেন একসাথে “মাইক্রোসফট” কোম্পানির প্রতিষ্ঠা করেন, যেটা পরবর্তীতে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় পিসি কোম্পানির মর্যাদা পায়। – সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের
জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রেডিট ‘আস্ক মি এনিথিং’ নামের এক সভায় মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসকে সুখ নিয়ে কিছু প্রশ্ন করা

হয়েছিল। আর সেখানেই তিনি সুখের কিছু টিপস জানিয়েছেন। চলুন জেনে নেয়া যাক সেগুলো- বর্তমান নিয়ে বাঁচুন তার মতে, অতীতে কি হয়েছে তা নিয়ে ভেবে বসে থাকলে জীবনে সুখী হতে পারবেন না। তাই অতীতকে মন থেকে সরিয়ে বর্তমানে কেমন আছেন তা নিয়ে বাঁচুন। নিজের কথা শুনুন তিনি বলেন, সুখী হওয়ার অন্যতম সূত্র হলো সবার আগে নিজের কথা শুনুন। আপনার যদি মনে হয়, জীবনে আরো বড়

কিছু করার আছে, তাহলে সেটার করার জন্য উঠে পরে লাগুন। পরিবার তিনি আরো বলেন, সবার জীবনেই সবার আগে পরিবার হওয়া দরকার। পেশাগত জীবনে নানা সমস্যা হলেও তার মাঝে সময় বের করে নিন। আর পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান। বিল গেটসের সম্পদের হিসেব: বিল গেটস এখন ৮৯ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার, অর্থাৎ প্রায় নয় হাজার কোটি ডলার সম্পদের মালিক। তিনি যদি প্রতিদিন এক

মিলিয়ন ডলার করে খরচ করেন, এই বিপুল সম্পদ খরচ করতে তার সময় লাগবে ২৪৫ বছর। ১৯৭৫ সালে বিল গেটস তার বন্ধুর সঙ্গে মিলে মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠা করেন। ১২ বছর পর তিনি বিশ্বের কনিষ্ঠতম শত-কোটিপতি হন। মাইক্রোসফট তাদের উইন্ডোজ- নাইনটি-ফাইভ বাজারে ছাড়ার পর বিল গেটস বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তিতে পরিণত হন। মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর পর তিনি তার ফাউন্ডেশনের কাজে মনোযোগ দিয়েছেন। বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এ পর্যন্ত জনসেবামূলক কাজে দান করেছে ৪১ বিলিয়ন ডলার।

Check Also

হাঁড়ি বা কড়াইয়ের পোড়া কালো দাগ তুলে একদম চকচকে করার দারুন কার্যকরী পদ্ধতি, এভাবে পরিষ্কারে হবে দারুন চকচকে!

আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে যে সমস্ত জিনিসপত্র গু-লি ব্যবহার করে থাকি সেগু-লি কখনো কখনো অত্যাধিক ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page