Home / News / গ্রামের মানুষ অনেক গরীব! ২০বছর ধরে মাত্র ১টাকাতে মানুষকে চপ খাওয়াচ্ছেন এই ব্যাক্তি

গ্রামের মানুষ অনেক গরীব! ২০বছর ধরে মাত্র ১টাকাতে মানুষকে চপ খাওয়াচ্ছেন এই ব্যাক্তি

বর্তমানে পেঁয়াজ আর আলুর দামের কথা জানেন সবাই। দামের চোটে আলু আর পেঁয়াজে হাত দেওয়াই দায় হয়ে পড়েছে। প্রতি কেজির আলুর দাম ৪০ টাকা। রান্নার হেঁশেলের পাশাপাশি আলু পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়েছে চপ সিঙ্গারা তে। কিন্তু তবুও এক টাকায় চপ! বীরভূমের কোমা গ্রামের বাসিন্দা দিলীপ দে, দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষকে এক টাকায় চপ খাইয়ে আসছেন।

তার এই এক টাকা দামের চপ খেতে আশেপাশের গ্রাম থেকে অনেকে আসেন। বর্তমানে প্রতিটি বাজারে দোকানে দোকানে চপ এর দাম ৫ টাকা প্রতি পিস। এই পরিস্থিতিতেও দাঁড়িয়ে কিভাবে এক টাকায় চপ বিক্রি করছেন দিলীপ দে? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,”গ্রামের অনেক মানুষ গরিব৷

সেই কারণেই আমি ২০ বছর ধরে এই ১ টাকার চপ বিক্রি করে আসছি। যাতে গরিব মানুষরাও কিনে খেতে পারেন।। সেই কারণে বিক্রিও ভাল। কোমা গ্রাম ছাড়াও আশেপাশের প্রচুর মানুষ আসেন আমার চপ কিনতে। আর আমার মানুষকে খাইয়েই তৃপ্তি। ব্যবসায় কিছুটা ক্ষতি হলে তাই কিছু মনে হয় না”।

দিলীপ দে নামক ওই চপ দোকানের মালিকের কাছে চপ কিনতে আসা উষা দাস বলেছেন,”আমি গৃহবধূ। আমার বিয়ের আগে থেকেই এখানে চপ বিক্রি হচ্ছে। আজও দাম সেই ১ টাকা। আমরাও মাঝে মধ্যে ভাবি কী ভাবে উনি ১ টাকায় চপ বিক্রি করেন।”

বর্তমানে প্রতিটি দোকানেই চপের আকৃতি আগের থেকে যথেষ্ট ছোট হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এই অগ্নি মূল্য বাজারদর সত্ত্বেও এক টাকার বিনিময়ে চপ বিক্রি করছেন বীরভূমের দিলীপ দে।

Check Also

আজকাল এসব ঘটনা নতুন কিছু না, বড় ভাইয়ের বউকে ভাগিয়ে নিয়ে বলল ছোট ভাই

চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জে দেবরের সাথে ডাক্তার দেখানোর নাম করে দেড় মাসেও বাড়িতে ফিরেনি ভাবি। জানা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page