Home / Lifestyle / এই পদ্ধতিতে ঝোল দিয়ে মুরগির মাংস রান্না করলে এর স্বাদ দ্বিগুণ, গরম ভাতের সাথে বেশ জমবে, রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি!

এই পদ্ধতিতে ঝোল দিয়ে মুরগির মাংস রান্না করলে এর স্বাদ দ্বিগুণ, গরম ভাতের সাথে বেশ জমবে, রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি!

এই পদ্ধতিতে ঝোল দিয়ে মুরগির মাংস রান্না করলে এর স্বাদ দ্বিগুণ, গরম ভাতের সাথে বেশ জমবে, রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি!- আমরা

তো সবাই বিভিন্ন ধরনের মুরগি রান্না করে থাকি ।তুমি সব মুরগির মধ্যে দেশি মুরগি অন্যতম দেশি মুরগির স্বাদ অতুলনীয়। কিভাবে মুরগির স্বাদ আরো বাড়ানো যায় তা নিয়ে রয়েছে অনেক অনেক রেসিপি । আমরা প্রায় সবাই কমবেশি মুরগির তরকারি রান্না করতে পারি ।কিন্তু

স্পেশাল এর মধ্যেও একটা ব্যাপার আছে সবাই হয়তো মুরগী রান্না করতে পারি কিন্তু স্পেশালভাবে সেরকম ভাবে অনেকে রান্না করতে পারিনা। স্পেশাল ভাবে রান্না করতে গেলেও দেখা দেয় অনেক ঝামেলা। যেরকম ভাবে আমরা স্পেশাল করে দেশি মুরগি রান্না করতে চাই অনেকবার

সেরকম ভাবে আমাদের রান্না করা হয়না। পুরো রেসিপি বিগড়ে যায় ।আজকে আমরা দেশি মুরগির এমন একটি রেসিপি শেয়ার করব যা খুব সহজে আপনারা স্পেশালভাবে বাসায় বানিয়ে নিতে পারবেন ।স্পেশাল রেসিপি টিতে এমন এমন উপায় বলে দেয়া হবে যাতে করে আপনার

সহজে এটি তৈরি করতে পারবেন । এই রেসিপিতে স্পেশাল মুরগির রেসিপি সঠিকভাবে আপনারা তৈরি করতে পারেন বাসায়। এ রেসিপি টিতে আপনাদের বিশেষ একটা ঝামেলা পোহাতে হবে না ।খুব সহজেই তৈরি করে নিতে পারবেন দেশি মুরগির স্পেশাল রেসিপিটি ।যা খেতেও হবে স্পেশাল। আর সময় ও লাগবে কম ।

তাহলে চলুন জেনে নেই কিভাবে রান্না করতে হয় স্পেশাল দেশি মুরগির কষা।

উপকরণ সমূহঃ
একটি আস্ত দেশি মুরগি,আদা,রসুন,তেল,লবণ,পেঁয়াজ,হলুদ ও মরিচ গুড়া,আস্ত কাঁচা মরিচ ও শুকনা মরিচ (বাটা),পেঁয়াজ বেরেস্তা,লবঙ্গ,এলাচ,ধনে,শুকনা মরিচ,তেজপাতা,জিরা

রন্ধনপ্রণালী ঃ
প্রথমে দেশি মুরগিটিকে ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে ।পরিষ্কার করা শেষে মুরগি থেকে পিস পিস করে নিতে হবে ।পিস করা হলে মুরগির মাংস গুলোকে আদা, রসুন পেঁয়াজ বেরেস্তা ,হলুদ ও মরিচ গুড়া ,আস্ত কাঁচামরিচ ও শুকনা মরিচ বাটা দিয়ে সাথে তেল দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে । মুরগিরটি মিশিয়ে নেয়া হলে কিছুক্ষণের জন্য মেশানো মুরগিটি ঢাকনা দিয়ে রেস্ট এর জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর চুলা

জ্বালিয়ে একটি করাইয়ের মধ্যে লবঙ্গ,এলাচ ,ধনে শুকনা মরিচ, তেজপাতা জিরা দিয়ে কিছুক্ষণ মসলাগুলো কে ভাজতে হবে। ভেজা শেষ হলে মসলাগুলো কে বেটে নিতে হবে। এরপর চুলা জ্বালিয়ে চুলের মধ্যে কড়াই দিতে হবে কড়াইয়ের মধ্যে তেল দিতে হবে তেল গরম হওয়ার পর কড়াইয়ে মধ্যে তেলে পেঁয়াজ, জিরা, তেজপাতা দিয়ে দিতে হবে। এগুলো দিয়ে দেওয়ার পর কিছুক্ষণ নেড়ে নিতে হবে। মসল বুলুকে কিছুক্ষণ

কষিয়ে নিতে হবে। মসলাগুলো ভাজাভাজা হয়ে যাওয়ার পর এরমধ্যে মসলা মিশিয়ে রাখা মুরগির পিস পিস করে রাখা মাংসগুলো দিতে হবে। মাংসগুলো দিয়ে দেওয়ার পর কিছুক্ষণ মাংসগুলোকে পরিমান মত লবন দিয়ে নাড়তে হবে। এরপর এরমধ্যে লবঙ্গ,এলাচ, ধনিয়া ,শুকনো মরিচ ,তেজপাতা, জিরা দিয়ে যে মসলাগুলো তৈরি করা হয়েছিল সেই গুঁড়ো মশলা টি এইবার মাংসের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। মসলাগুলো

দেয়া শেষে দেশি মুরগি তাকে কিছুক্ষণ চুলের মধ্যে জাল দিয়ে বসিয়ে রান্না করে রাখতে হবে যতক্ষণ পর্যন্ত না মুরগির মাংস গুলো নরম হচ্ছে। মাংস কষানো শেষ হলে এরমধ্যে কিছু পানি দিয়ে দিতে হবে। জাতি করে এর মধ্যে ঝোলের সৃষ্টি হয়। পানি দেওয়া শেষ হলে মুরগি মাংসগুলোকে কিছুক্ষণ নাড়তে হবে। নাড়া শেষ হয়ে গেলে কড়াইয়ে ঢাকনা দিয়ে রেসিপি টিকে কিছুক্ষণ জ্বাল দিতে হবে পুরো আচে। মুরগির

মাংস ফুটতে শুরু করলে এর মধ্যে কেটে রাখা কিছু টমেটো দিয়ে দিতে হবে । টমেটো দেওয়ার পর প্রায় পাঁচ দশ মিনিট আবারো মুরগির মাংসটিকে ঢাকা দিয়ে জ্বাল দিতে হবে। জাল শেষ হলে তৈরি হয়ে যাবে আমাদের স্পেশাল মুরগির তরকারি টি। আশা করছি আপনাদের এ রেসিপি ভালো লাগবে ।ভাল লাগলে অবশ্যই বাসায় তৈরি করে দেখবেন ।রেসিপিটি খুবই সহজ এবং ঝামেলাহীন ।খুব সহজে আপনারা বাসায় রেসিপি তৈরি করতে পারবেন।
ভিডিও লিংক: https://www.youtube.com/watch?v=MGgBHjLVx1U

Check Also

ঘরে কিনে রাখা চালে পোকা ধরার সমস্যা দূর করার দারুণ কৌশল শিখে নিন

সারা মাসের বাজার অনেকেই একসঙ্গে করে থাকেন। সেখানে চালও থাকে। অনেকেই আবার বেশি পরিমাণে চাল ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *