এই এই সমস্যাগুলি চিরতরে দূর হবে গরম দুধের সঙ্গে খেঁজুর খেলে! জানুন বিস্তারিত।

আমাদের শরীরে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রো-গের প্র-ভাব দেখা যায় । কখনো কখনো দে-হের রো-গ প্র-তিরোধ ক্ষ-মতা এতটাই কম হয়ে যায় সাধারণ জ্ব-র স-র্দি-কা-শি ও সহজে আমাদের আ-ক্রান্ত করতে পারে । কিন্তু অনেকেই আছেন যারা নিয়মিত শরীর চর্চা করেন । বাইরে খাবার থেকে শুরু করে সারাদিন চলে তাদের নিয়মমাফিক । তাদের ক্ষেত্রে শা-রীরিক স-মস্যা কোথায় একটু কম হয় । কিন্তু আপনি জানলে অবাক হবেন তারা রোজগার রুটিনে এমন একটি ফল রাখেন যেটি আপনি খেলেও আপনার শ-রীরের রো-গ প্র-তিরোধ ক্ষমতা বাড়ে দ্বিগুণ ।

তার পাশাপাশি মুক্তি পাবেন বেশ কয়েকটি রোগ থেকে । আপনি নিশ্চয়ই জানতে উ-দগ্রীব হয়েছেন যে কি সেই ফল? জানাবো আপনাদের বিস্তারিত । এটি এমন এক ধরনের ফল যেটি বিভিন্ন খাবারের সাথে ব্যবহার করা হয় এবং এর একটি প্রাকৃতিক মিষ্টতার হয়েছে । যার ফলে শ-রীরে কোনো ক্ষ-তি হয় না । আমি এই মুহূর্তে খেজুরে কথা বলতে চলেছি । বছরের সব সময় খেজুর পাওয়া যায় বাজারে । এবং সে যদি আপনি প্রতিদিন নিয়মিত খান তাহলে শ-রীরের রো-গ প্র-তিরোধ ক্ষ-মতা বাড়ার সাথে সাথে অনেক রো-গের থেকে মুক্তি পাবেন ।

তবে শুধুমাত্র খেজুর খেলে চলবে না । তার সাথে খেতে হবে গরম দুধ আসুন দেখে নিই গরম দুধের সাথে খেজুর খেলে কি কি রোগ থেকে মুক্তি মেলে । দুধের সাথে খেজুর যদি আপনি মিশিয়ে খান তাহলে আপনার দৈহিক শক্তি অধিক হারে বাড়বে । এর পাশাপাশি যারা ডা-য়াবেটিস রো-গে আ-ক্রান্ত তারা অতি অবশ্যই এটি সেবন করতে পারেন । এবং এর মধ্যে যেহেতু একটা প্রাকৃতিক মিষ্টি রয়েছে তাই এটি কোনো ক্ষ-তি করে না । দুটি থেকে চারটি খেজুরের আগাছা খেজুরের কার্নেলগু-লি বের করে দুধে সিদ্ধ করুন। এর পরে খেজুর খাবেন এবং দুধ পান করুন।

এটি ধীরে ধীরে শ্লেষ্মা সরিয়ে দেয়, যা হাঁপানিতে স্বস্তি দেয়। আসলে, খেজুরের তারিখটি উষ্ণ, যাতে ফুসফুস এবং হার্টের উপকার হয়। মহিলাদের প্রতি মাসে মা-সিক ব্য-থা ভো-গ ক-রতে হ-য়। মহিলাদের পে-টে ব্য-থা, পিঠে- ব্য-থা পাশাপাশি পায়ের আঁ’চিল হয়। এমন পরিস্থিতিতে নিয়মিত গরম দুধের সাথে খেজুর খেলে উপশম হয়। নিয়মিত বাইরের খাবার খাওয়ার ফলে বা অনিয়মিত খাবার খাওয়ার ফলে আমরা অনেকেই কো-ষ্ঠকা-ঠিন্য রো-গে আ-ক্রান্ত হয় । এই কো-ষ্ঠকা-ঠিন্য রো-গ থেকে মুক্তির জন্য এক গ্লাস গরম দুধে তিন থেকে চারটি খেজুর ভালো মতন সিদ্ধ করে নিন । এবং দুধ টি পান করুন । এক থেকে দু মাস প্রতিনিয়ত সেবন করলে মাড়ি থেকে র-ক্ত পড়ার সাথে সাথে কো-ষ্ঠকাঠি-ন্য মতন জ-টিল স-মস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন আপনি ।

Check Also

শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ১০টি সহজ টিপস শিখে নিন

শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ১০টি সহজ টিপস শিখে নিন- অনেক বাবা-মা শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য নিয়ে বেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page