Home / Health / মাথার ঘন চুল মরুভূমি হয়ে যাওয়ার আগেই স্টেপ নিন‚ কারি পাতা ব্যবহার করুন

মাথার ঘন চুল মরুভূমি হয়ে যাওয়ার আগেই স্টেপ নিন‚ কারি পাতা ব্যবহার করুন

Copy

ভারত এবং শ্রীলঙ্কায় যত্রতত্র দেখা যায় এই গাছ | বহু ধরণের ভারতীয় রান্নায় এই পাতার ব্যবহার হয় | আর দক্ষিণ ভারতীয় রান্নায় এই পাতা থাকবে না তা তো ভাবাই যায় না | এতক্ষণে নিশ্চই বুঝতে পেরে গেছেন আমরা কারি পাতার কথা বলছি | অনেক জায়গায় আবার কারি পাতা কে ‘ মিঠা নিম ‘ নামেও ডাকা হয় | কারি পাতার বহু গুণ আছে‚ এটা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট‚ অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি কান্সার | এছাড়াও কিডনি‚ লিভার ভালো রাখে‚ হাড় শক্ত করে‚ ত্বক উজ্জ্বল করে এবং হজম করতেও সাহায্য করে |

এখানেই শেষ নয়‚ কারি পাতা আমাদের চুলের জন্যও খুব উপকারী | কারি পাতা ভিটামিন সি‚ ক্যালসিয়াম‚ ফসফরাস‚ আয়রন আর নিকটনিক অ্যাসিডে সমৃদ্ধ | আর এইসব গুলোই চুল ভালো রাখার জন্য অত্যন্ত জরুরী |

আজকে দেখবো চুলের ক্ষেত্রে কারি পাতার উপকারিতা |

# চুলের বৃদ্ধি দ্রুত করে

পরীক্ষা করে দেখা গেছে কারি পাতা‚ আমলকি‚ ব্রাহ্মী আর মেথির দানা যদি একসঙ্গে বেটে মাথায় লাগানো হয় তাহলে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হয় | এমনকী বাজারে যে হেয়ার গ্রোথ হেয়ার অয়েল পাওয়া যায় তার থেকে এটা অনেক বেশি কার্যকরী | দেখা গেছে নিয়মিত ১৮ দিন লাগালেই আপনি নিজের চোখে ফলাফল দেখতে পাবেন |

# চুলের স্বাস্থ্য বৃদ্ধি করে

চুলের বৃদ্ধি তো দ্রুত করেই তাছাড়াও চুল-কে স্বাস্থ্যজ্জ্বলও রাখে | আপনি নারকেল তেলে কারি পাতা ফুটিয়ে সেই তেল লাগাতে পারেন আবার হেয়ার মাস্ক হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন | সাধারণত দেখা গেছে দক্ষিণ ভারতীয় মহিলাদের চুল লম্বা কালো এবং মোটা হয় | শোনা যায় দক্ষিণ ভারতীয় মহিলারা নিয়মিত জলের মধ্যে কারি পাতা ফুটিয়ে সেই জল দিয়ে চুল ধোয় | ফলে সুন্দর চুল-এর অধিকারীনী হয় ওরা |

# অকালপক্কতা রোধ করে

চুলের অকালপক্কতা রোধ করা কারি পাতার অন্যতম উপকারিতা | নারকেল তেলে কারি পাতা ফুটিয়ে সেই তেল নিয়মিত মাথায় লাগালে চুল কালো এবং রেশমি হয় | অকালপক্কতা রোধ করার জন্য কারি পাতার ব্যবহার আয়ুর্বেদেও নির্দেশ করা আছে |

# চুল পড়া কমায়

মাথা থেকে রোজ ৫০ থেকে ১০০ টা চুল ঝরে যাবে তা স্বাভাবিক | কিন্তু তার থেকে বেশি যদি চুল পড়ে সেই অবস্থাকে বলে অ্যালোপেসিয়া | দেখা গেছে লাল জবা ফুল আর কারি পাতা একসঙ্গে বেটে মাথায় লাগালে কয়েকদিনের মধ্যে চুল পড়া কমে যায় |

# খুসকি আর মাথার ইনফেকশন থেকে বাঁচায়

আগেই বলেছি কারি পাতা অ্যান্টি ব্যকটেরিয়াল‚ অ্যান্টি ফাংগাল এবং অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি | ফলে মাথার স্কাল্প সুরক্ষিত রাখে | একই সঙ্গে খুসকি যা সাধারণত ফাংগাস আর ব্যাকটেরিয়া থেকে হয় তার থেকেও চুল-কে বাঁচায় | এর জন্য কারি পাতা বেটে টক দয়ের মধ্যে তা মিশিয়ে মাথার স্কাল্পে আর চুলে ভালো করে লাগাতে হবে | ২০ মিনিট রেখে হাল্কা গরম জলে চুল ধুয়ে ফেলুন |

# চুল-এর ড্যামেজ মেরামত করে

দূষণের কারণে খুব সহজেই চুলের ক্ষতি হয় | এর ফলে চুল শুষ্ক‚ নির্জীব হয়ে পড়ে | কারি পাতায় যে হেতু অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে তাই এর ব্যবহারে চুল উজ্জব‚ নরম এবং স্বাস্থ্যকর হয় |

Check Also

১টা মা’ত্র পে’য়া’রা ব’দ’লে দি’তে পা’রে আ’পনা’র জী’ব’ন। বলছে গ’বেষ’ণা প’ড়ুন

Copy সকলের কাছেই পেয়ারা বেশ পছন্দের ফল। সে কাঁচাই হোক বা পাকা। পছন্দের হলেও প্রতিদিন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *