Home / Health / মস্তিষ্কের ক্ষতি না চাইলে এখনই বাদ দিন এই ৭টি অভ্যাস

মস্তিষ্কের ক্ষতি না চাইলে এখনই বাদ দিন এই ৭টি অভ্যাস

Copy

মানবদেহের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ মস্তিষ্ক। যার উপর নির্ভরশীল পুরো শরীরের সব অঙ্গ। মস্তিষ্ক সংকেত দেয় বলেই শরীরের সব অঙ্গ প্রত্যঙ্গ ঠিকমতো চলছে। আর তাই মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালো রাখা খুবই জরুরি। কারণ সামান্য অবহেলা ডেকে আনতে পারে মহাবিপদ।

মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য জরুরি কিছু বিশেষ যত্নের ও সাবধানতার। অথচ নিজের অজান্তেই প্রতিদিন অসংখ্য ভুল কাজে মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যহানি করে চলেছি আমরা নিজেরাই। এ ক্ষেত্রে মস্তিষ্কের ক্ষতি না চাইলে এখনই বাদ দিন এই ৭ ক্ষতিকর অভ্যাস।

* সকালের নাস্তা ভুলে যাওয়া/মিস করা।

* রাতে দেরিতে ঘুমানো।

* অতিরিক্ত মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়া।

* সকালে অধিক পরিমাণে ঘুমানো।

* খাওয়ার সময় টিভি বা কম্পিউটার দেখা।

* ক্যাপ/স্কার্ফ বা মোজা পরে ঘুমানো।

* ইচ্ছাকৃতভাবে প্রস্রাব আটকে রাখা/বন্ধ করে রাখা।

গভীর রাতে ঘুমোলে যেসব খাবার একদম খাবেন না

অনেকেরই গভীর রাতে ঘুমোনোর অভ্যাস আছে। কাজের প্রয়োজনে, কেউ আবার এমনিতে অনেক রাতে ঘুমান। দীর্ঘ সময় রাত জাগার কারণে খিদে পাবে এটাই স্বাভাবিক। তবে এমন কিছু খাবার আছে যেগুলি গভীর রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে খাওয়া মোটেও ঠিক নয়। এতে শরীরে নানাবিধ জটিলতা দেখা দিতে পারে। যেমন-

দুধ : গভীর রাতে ঘুমানোর আগে কখনও দুধ খাওয়া উচিত না। কারণ দুধে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন থাকায় হজমের সমস্যা দেখা দেয়।

চকলেট : রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে চকলেট খাওয়াও উচিত নয়। এতে ঘুমের সমস্যা হয়।

পিৎজা : অনেকেরই অভ্যাস আছে গভীর রাত পর্যন্ত জেগে ঘুমানোর আগে এক টুকরা পিৎজা খাওয়ার। কিন্তু এতে উচ্চ ক্যালরি থাকায় ঘুমালে তা সহজে হজম হতে চায় না। এতে ঘুমও ব্যাহত হয়। এ সময় অন্যান্য ফাস্ট ফুড খাওয়া থেকেও বিরত থাকা উচিত।

ফলের রস: ঘুমানোর আগে ফলের রস খাওয়াও ঠিক নয়। চিকিৎসকরা বলছেন, এতে হৃদরোগের সমস্যা হতে পারে।

আইসক্রিম : গভীর রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় অনেকে আইসক্রিম খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু এতে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট থাকায় তা শরীরে বাড়তি ক্যালরি যোগ করে।

সাইট্রাস ফল : রাতে সাইট্রাস জাতীয় ফল খেলে ঘন ঘন প্রসাব হয়, অ্যাসিডিটি বাড়ে। এতে ঘুম ব্যাহত হয়।

কেক : ঘুমানোর আগে উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার খেলে অ্যাসিডিটি বাড়ে। কেক জাতীয় খাবারে ফ্যাট থাকায় এটিও অ্যাসিডিটি বাড়ায়।

অ্যালকোহল : কেউ কেউ গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকলে অ্যালকোহল সেবন করেন। এটা মোটেও উচিত নয়। এতে লিভার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

Check Also

১টা মা’ত্র পে’য়া’রা ব’দ’লে দি’তে পা’রে আ’পনা’র জী’ব’ন। বলছে গ’বেষ’ণা প’ড়ুন

Copy সকলের কাছেই পেয়ারা বেশ পছন্দের ফল। সে কাঁচাই হোক বা পাকা। পছন্দের হলেও প্রতিদিন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *