Home / Hindu / কৃষ্ণপক্ষের নবমী তিথিতে দেবীর বোধন হল শীল লেনের দাসবাড়িতে

কৃষ্ণপক্ষের নবমী তিথিতে দেবীর বোধন হল শীল লেনের দাসবাড়িতে

কৃষ্ণপক্ষের নবমী তিথির আদ্রা নক্ষত্র মেনে শীল লেনের দাসবাড়িতে হল দেবীর বোধন। ক্যালেন্ডার বলছে আর মাত্র কয়েকদিন। কারণ দুর্গাপুজোর দোড়গোড়ায় এসে কড়া নাড়ছে। আর এরই মাঝে ঢাকে পড়ল কাঠি। এর মধ্যেই শুক্রবার কৃষ্ণ নবমীতে রীতি মেনে শীল লেনের দাসবাড়িতে হল দেবীর বোধন।

গত ১২ বছর ধরে পুজোর আয়োজন চলছে। ট্যাংরার শীল লেনের দাস পরিবারের বাড়ির পুজোয় এবছর লোকজনের তেমন সমাগম নেই। করোনা আবহে এবছর তেমন আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বলেই জানিয়েছেন বাড়ির সদস্যরা। ১১ বছর আগে প্রসেনজিৎ দাস ও তাঁর দিদি মিলে ঠিক করেন দুর্গাপুজো করবেন। তবে চিরাচরিত নিয়মে নয়, তাঁরা পুজো শুরু করবেন কৃষ্ণপক্ষের নবমী থেকে।

সেই থেকে প্রতি বছরই কৃষ্ণ নবমী থেকেই মধ্য কলকাতার শীল লেনের দাসবাড়ির দুর্গাপুজোর আয়োজন শুরু হয়ে যায়। এই বছর তার ব্যতিক্রম হল না। করোনা আবহে সকলের মন খারাপ থাকলেও রীতি মেনেই এদিন শুরু হয়ে গেল পুজো। যদিও চলতি বছর মহালয় প্রায় অনেকদিন পরে পুজো। আর তাই এই বছর শীল লেনের এই দাস বাড়িতেও ১৫ দিনের বদলে ৪৫ দিন ধরে চলবে পুজো।

পারিবারিক রীতি মেনে কৃষ্ণ নবমীতে এদিন দাসবাড়িতে শুরু হল পুজো। বোধনের ঘট বসিয়ে শুরু হয়ে গেল পুজোর আয়োজন। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও নিয়মিত এই ঘটেই পুজো চলবে বলে জানান পরিবারের সদস্যরা। মহাপুজোর আয়োজন হবে মহাসপ্তমী থেকে দশমী অবধি। কঠিন পরিস্থিতিতে শীল লেনের দাসবাড়িতে দেবীর বোধনে যেন শহরবাসীর মুখে ফুটেছে স্বস্তির হাসি। তারা আশায় বুক বাঁধছে যে চলতি বছরও কলকাতায় হবে পুজো।

বাড়ির সদস্য প্রসেনজিৎবাবু জানান, সপ্তমী থেকে শুরু মহাপুজো। তখন অঞ্জলি, হোম সহ সমস্ত রীতি সহকারে মহাপুজোর সমস্ত নিয়ম মানা হয়। মহালয়া পর্যন্ত পৌরাণিক নিয়ম মেনে হবে পুজো। তারপর দিন থেকে প্রতিপদ পর্যন্ত নিত্যপুজো চলবে। ফের প্রতিপদ থেকে ষষ্ঠী বিশেষ পুজোর পর সপ্তমী থেকে নবমী পর্যন্ত হবে মহাপুজো। করোনা পরিস্থিতিতে মানা হচ্ছে কোভিড বিধি।

Check Also

তারা মায়ের স্বপ্নাদিষ্ট অব্যর্থ ওষুধ খেয়ে সুস্থ হন রোগীরা, রয়েছে ৪০০ বছরের প্রাচীন মন্দিরের মাহাত্ম্য

তারা মায়ের স্বপ্নাদিষ্ট অব্যর্থ ওষুধ খেয়ে সুস্থ হন রোগীরা, রয়েছে ৪০০ বছরের প্রাচীন মন্দিরের মাহাত্ম্য ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *