Home / Adult / কখন শা’রী’রি’ক স’ম্প’র্ক করলে মেয়েরা বেশি তৃ’প্তি পায়

কখন শা’রী’রি’ক স’ম্প’র্ক করলে মেয়েরা বেশি তৃ’প্তি পায়

কখন শারীরিক সম্পর্ক করলে মেয়েরা বেশি তৃ’প্তি পায়। রাতের বেলা পুরুষরাই সহ’বাস থেকে দূরে থাকে কিন্তু সকালের দিকে তাদের বেশি চাহিদা থাকে। অন্যদিকে মেয়েরা রাতের বেলাই সহ’বাস(Intercourse) করতে চায় কিন্তু পুরুষরা তখন নাক ডেকে ঘু’মাই। আবার সকালের দিকে পুরুষরা সহ’বাস করতে চাইলে নারীরা তেমন আগ্রহ দেখায় না। অনেকে বলতে পারেন কেন এমনটি হয়। এই বি’ষয় নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলেছেন যে, মূলত মানুষের হরমোনের কারণে এই রকম সমস্যা দেখা দেয়।

এবার জেনে নেয়া যাক, কোন সময়ে মানুষের যৌ’ন চাহিদা কেমন থাকেঃ- ভোর পাচটাঃ- পুরুষদের ভোর বেলা টেসটোসটেরনের মাত্রা সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকে। তখন ২৫- ৩০ শতাংশের মধ্যে মাত্রা থাকে। যা দিনের অন্য সময়ের তুলনায় বেশি। পুরুষদের টেস্টোস্টেরনের(Testosterone) মাত্রা ভোরের দিকে বাড়তে থাকে। সকাল ছয়টাঃ- ভাল ঘু’ম যৌ’ন চাহিদা(Sexual desire) বৃ’দ্ধিতে সহায়তা করে। গবেষনায় দেখা গেছে যে, দীর্ঘসময় ভাল ঘু’ম হলে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বৃ’দ্ধি পায়। আমেরিকার মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের গবেষণা করে দেখা গেছে যে, ৫ ঘণ্টার বেশি ঘু’ম ঘু’ম পুরুষের টেস্টোস্টেরনের মাত্রাতিরিক্ত ১৫ শতাংশ বৃ’দ্ধি করে থাকে।

দুপুর বারোটাঃ- দুপুর বারোটায় সুন্দরী মেয়েরা দেখলেও কোন ধরনের যৌ’ন চাহিদা সৃষ্টি হয়না। এই সময় হইত কাউকে দেখলে ভাল লাগা কাজ করে। এই সময় সে’ক্স হরমোন(Sex hormone) তেমন বাড়ে না। রাত আট’টাঃ- এই সময়টাতে যদি কোন পুরুষ টেলিভিশন বা মোবাইলে উত্তেজনা পূর্ন কোন ধরনের ভিডিও দেখে সেটি সে’ক্স হরমোন বৃ’দ্ধিতে সহায়তা করে থাকে। উথাহ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি লালা গবেষণায় দেখা গেছে যে, এই সময় যদি কোন মানুষ বিশ্বকাপের মতো উত্তেজনা পূর্ন খেলার ম্যাচ দেখে এবং সেই দল জিতলে তখন তার সে’ক্স হরমন ২০ শতাংশ বৃ’দ্ধি পায় আর যদিসেই দল হারে তাহলে সে’ক্স হরমন ২০ শতাংশ করে যায়। কিন্তু নারীদের ক্ষেত্রে এমনটি হয় না, তাদের খেলা দেখার চেয়ে খেলা করলে সে’ক্স হরমন(Sex hormones) বৃ’দ্ধি পায়।

রাত দশটাঃ- এই সময়টাতে যদিও পুরুষদের সে’ক্স হরমনের মাত্রা কম থাকে তবুও সে নারীর সাথে সহ’বাস করতে চাই। এই সময় নারীদের সে’ক্স হরমন বেশি থাকে। সকাল সাতটাঃ- পুরুষরা সকাল বেলা ঘু’ম থেকে উঠলে তখন সে’ক্স হরমনের মাত্রা অনেক বেশি থাকে কিন্তু নারীদের এই সময় সে’ক্স মাত্রা সর্বনিম্ন পর্যায়ে থাকে।
সকাল আট’টাঃ- এই সময়টাতে নারী পুরুষ উভয়ই নিজেদের কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকে । তখন স্ট্রেস হরমোন করটিসলের মাত্রা বাড়তে থাকে।

যা পুরুষদের সহ’বাসের হরমোনের মাত্রা কমিয়ে আনে। নারী ও পুরুষদের যৌ’ন চাহিদা(Sexual desire) তাদের নিজেদের উপর নির্ভর -করে না। হরমোনই যৌ’ন চাহিদার মুল চালিকা শক্তি। তাই নারী ও পুরুষদের মধ্যে যৌ’ন চাহিদার মধ্যে পার্থক্য হয়ে থাকে।

Check Also

নারীদের এই ৩টি ভুলে সম্পর্কে ভাঙন ধরতে পারে

প্রেমের জোয়ারে ভাসার সময়ে মনে হয় যেন এই প্রেম চিরন্তন। পৃথিবী ওলটপালট হয়ে গেলেও প্রেমে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *