Home / Health / অতিরিক্ত দুশ্চি’ন্তায় বাড়ছে এই সব রো’গের আ’শ’ঙ্কা, কী করবেন, কী করবেন না

অতিরিক্ত দুশ্চি’ন্তায় বাড়ছে এই সব রো’গের আ’শ’ঙ্কা, কী করবেন, কী করবেন না

দুশ্চি’ন্তার সঙ্গেই ঘর করতে হচ্ছে আপাতত। কবে সব মিটবে, জানা নেই। ব’ন্ধ মন ভাল রাখার অনেকগুলো সব পথ। তার উপর যখন-তখন, যেখানে-সেখানে রো’গের ভ’য়। কেউ একটা হাঁচি দিলে বা গা একটু গরম হলেই মনে হয়, করোনা নয় তো!

ক’রোনা আবহে মানসিক চাপ ও মেজাজ খারা’পের হাত ধরে অন্য রো’গ যে এসে হাজির হবে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কী রয়েছে তালিকায়? আসুন, দেখে নেওয়া যাক।

দুশ্চিন্তায় বাড়তে পারে যে রোগ

• উদ্বেগ বাড়লে অনেকেই যা খুশি খেতে শুরু করেন, শুয়ে-বসে থাকেন, নেশা করেন। তার হাত ধরে বাড়ে ওজন এবং ওজনের সঙ্গে সম্পর্কিত অসুখবিসুখের আশঙ্কা এবং রো’গ থাকলে তার প্রকোপ। যেমন উচ্চ র’ক্তচা’প, ডায়াবিটিস, হাই কোলেস্টেরল, ফ্যাটি লিভার, হৃদরোগ, গেঁটে বাত ইত্যাদি, এমনই জানান চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায়।

• মানসিক চাপের সঙ্গে সরাসরি যোগ আছে ডায়াবিটিস, উচ্চ র’ক্তচা’প ও হৃ’দরো”গের। অনিদ্রা, খিটখিটে মেজাজের সম্পর্ক আছে মানসিক চা’পের সঙ্গে। সবে মিলে জীবন বিপর্যস্ত হয় আর তাতে কমে রোগ প্রতিরো’ধ ক্ষ’মতা। বাড়ে সংক্রমণের আশ’ঙ্কা।

• লাগাতার উদ্বেগে অম্বল, বদহজম বাড়ে। চিকি’ৎসা না হলে আরও বাড়ে।

• ঋতুস্রাব অনিয়মিত হওয়ার মূলেও হাত আছে উদ্বেগের।

অতএব দুশ্চিন্তা করে যখন করোনাকে ঠেকাতে পারবেন না, তখন দুশ্চিন্তাকেই ঠেকানোর চেষ্টা করুন। মনোচিকিৎসক শিলাদিত্য মুখোপাধ্যায়ের মত, “চাপকে চাপের মতো থাকতে দিন। নিজে সামান্য কয়েকটা নিয়ম মেনে চলুন, দেখবেন মূল সম’স্যা না মিটলেও আপনার উপর তার প্রভাব কম পড়ছে।”

দুশ্চিন্তা ডেকে আনতে পারেন মারণ রোগকে ডায়াবিটিসকে। সতর্ক হোন আজই। ছবি: শাটারস্টক

জীবনযাপনের এই সব নিয়ম মেনে চলুন। যেমন-

• ‘নিউ নর্মাল জীবন’-কে মেনে নিন। যত তাড়াতাড়ি মানতে পারবেন, তত ভাল থাকবেন।

• মন হালকা করার নতুন পথ খুঁজুন। বই পড়া হোক কি গান শোনা, ঘরে বসে সিনেমা দেখা বা হালকা ব্যায়াম করা যে কোনও পথ বেছে নিন। যোগাসন ও মেডিটেশন অভ্যা’সেও মন হালকা হয় ।

• টিভি-তে বা মোবাইলে হালকা অনুষ্ঠান দেখুন। হাসির অনুষ্ঠান দেখলে আরও ভাল।

• ডায়াবিটিস, উচ্চ র’ক্তচা’প ও ওবেসিটি থাকলে নিয়ম করে ব্যায়াম করুন।

• খাওয়াতে রাশ টানুন। ডায়া’বিটিস ও মেদ বাহুল্য থাকলে কার্বোহাইড্রেট ও মিষ্টি কম খান। র’ক্তচা’প বেশি হলে নোনতা খাবার ও ভাজাভুজি বাদ দিন।

• ঘন ঘন চা-কফি-সফ্ট ড্রিঙ্কস পান করে ঘুম ন’ষ্ট করবেন না। মন ভাল রাখার অর্ধেক ও’ষুধ কিন্তু লুকিয়ে আছে ঘুমের মাঝেই।

• কোনও সম’স্যা হচ্ছে মনে হলেই ডাক্তার দেখান। অনেকেই আজকাল অনলাইন রো’গী দেখছেন। চেম্বারে যেতে স’মস্যা মনে হলে ফোন করে পরামর্শ নিন। নিজে থেকে ওষুধ খেয়ে বি’পদ বাড়াবেন না। সু’স্থ থাকুন। ভাল থাকুন।

(জরুরি ঘোষণা: কোভিড-১৯ আক্রা’ন্ত রো’গীদের জন্য কয়েকটি বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই হেল্পলাইন নম্বরগুলিতে ফোন করলে অ্যাম্বুল্যান্স বা টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত পরিষেবা নিয়ে সহায়তা মিলবে। পাশাপাশি থাকছে একটি সার্বিক হেল্পলাইন নম্বরও।

• সার্বিক হেল্পলাইন নম্বর: ১৮০০ ৩১৩ ৪৪৪ ২২২

• টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-২৩৫৭৬০০১

• কোভিড-১৯ আক্রান্তদের অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-৪০৯০২৯২৯)

Check Also

আপনি কি জানেন কিডনি রোগে এই খাবার গুলো খুবই উপকারী, জানাচ্ছে চিকিৎসকরা

ডায়েবেটিস, রক্তচাপ, ঘন ঘন ইউরিন ইনফেকশন ও অস্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণের কারণে কিডনি রোগ হয়। কিডনি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *